সচিব হিসেবে অবসরে গেলেন সুব্রত রায় মৈত্র

প্রতিবেদক, চৌগাছা(যশোর) : যশোরের চৌগাছার কৃতি সন্তান সুব্রত রায় মৈত্র বাংলাদেশ সরকারের সচিব হিসেবে অবসরে গেলেন। বৃহস্পতিবার তাকে সচিব পদে পদোন্নতি দিয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। ওই দিনই ছিল তার চাকরী জীবনের শেষ দিন। তিনি অবসরকালিন সচিব পদের যাবতীয় সুযোগ সুবিধা ভোগ করবেন। এদিনই রাষ্ট্রপতির আদেশক্রমে এসংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারী হয়।

১৯৮৫ সালের প্রশাসন ক্যাডারের এই কর্মকর্তা পদোন্নতির আগে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (সাব-রিজিওনাল কো-অপারেটিভ কাউন্সিল) অতিরিক্ত সচিব হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ১৯৮৮ সালে লালমনিরহাটে সহকারি কমিশনার হিসেব যোগদানের পর তিনি নওগাঁর মান্দা ও পাবনার ফরিদপুরের এসিল্যান্ড হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর পর্যায়ক্রমে বগুড়ার দুপচুপিয়ার উপজেলা নির্বাহী অফিসার, কুষ্টিয়া ও কিশোরগঞ্জ জেলা পরিষদের সচিব, চুয়াডাঙ্গার জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা’র দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ন্যাশনাল স্পোর্টস কাউন্সিলের ইয়ুথ এন্ড স্পোর্টস শাখার কালচারাল এ্যাডভাইজারের দায়িত্ব পালন করেন। ২০১০ সালের মার্চ মাসে তিনি প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন। ২০১২ সালে তিনি বাংলাদেশ সরকারের যুগ্ম সচিব হিসেবে এবং ২০১৪ সালে তিনি অতিরিক্ত সচিব হিসেবে পদোন্নতি পান।

সুব্রত রায় মৈত্র ১৯৭৫ সালে মহেশপুর হাইস্কুল থেকে এসএসসি, ১৯৭৭ সালে কোটচাঁদপুর সরকারি কেএমএইচ কলেজ থেকে এইচএসসি, ১৯৮১ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিভাগে ¯œাতক (সম্মান) এবং ১৯৮২ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি বিভাগে ¯œাতকত্তোর ডিগ্রি অর্জন করেন।

ব্যক্তি জীবনে একপুত্র ও এক কন্যার জনক সুব্রত রায় মৈত্র ১৯৫৯ সালের ২১ সেপ্টেম্বর যশোর জেলার চৌগাছা উপজেলার কাদবিলা গ্রামে সম্ভ্রান্ত সনাতনধর্মী পরিবারে স্বর্গীয় সুরাদাশ রায় মৈত্র ও জয়ন্তী রায় মৈত্র দম্পত্তির ঘরে জন্মগ্রহণ করেন। তার স্ত্রী ছন্দা ভট্টাচার্য একজন গৃহিণী। একমাত্র কন্যা অনন্যা রায় মৈত্র এক্সিম ব্যাংকের কর্মকর্তা। একমাত্র পুত্র সৌরভ রায় মৈত্র যশোর মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ করে ইন্টার্নশীপ করছেন। তার জামাতা ওয়াসার প্রকৌশলী।