মন ও মননে মিশে আছে প্রিয় শহর যশোর : চম্পা

ব্যুরো রিপোর্ট: আমার জন্ম যশোরে। আমি এখনও আমার শৈশব কাটানো সে শহরের কথা ভুলতে পারি না। সেখানে বান্ধবীরা মিলে কত রকম খেলা করতাম, সেটা এখন স্বপ্নের মতো লাগে। অনেক খেলা হারিয়েও গেছে। যশোরে ঘটে যাওয়া দুটি ঘটনা আমি এখনও ভুলতে পারি না। প্রথমটার কথা বলতে গেলে, যশোর আমাকে দ্বিতীয়বার জন্ম দিয়েছে। বিষয়টি খুলে বলি। আমি ছোটবেলায় পুতুল খেলা পছন্দ করতাম। প্রতিদিন পুতুলের সঙ্গে পুতুলের বিয়ে দিতাম। একদিন পুতুলের কাপড় ধোয়ার জন্য পুকুরে যাই। সেখানে আমার হাত থেকে পুতুল পুকুরে পড়ে যায়। পানি থেকে পুতুল উঠাতে গিয়ে আমি নিজেই পুকুরে পড়ে যাই। সাঁতার জানতাম না। যার ফলে পুকুরের ডুবে গিয়েছিলাম প্রায়। এমন সময় পপি আপু (চিত্রনায়িকা ববিতা) আমাকে পুকুর থেকে উঠিয়ে আনেন। পপি আপুই আমাকে সেদিন বাঁচিয়ে রাখেন বলা চলে। মজার বিষয় হচ্ছে ওই দিন থেকে আমি আর পুকুরে গোসল করি না।

দ্বিতীয় ঘটনাটি হচ্ছে, চকলেট খাওয়ার অভ্যাস ছিল আমার। একদিন মুখ থেকে চকলেট মাটিতে সবুজ ঘাসে পড়ে যায়। আমি চকলেট খুঁজে পেয়ে মুখে দিলাম। চকলেট একেবারেই গলে গেল। আর স্বাদ তো মিষ্টি লাগার কথা, কিন্তু আমতা-আমতা লাগছে। আমি পরে মুখ থেকে বের করে দেখি, এ তো চকলেট নয় ছাগলের নাদি!

এসব বিষয় এখন বলতেও ভালো লাগে। যদিও তখন লজ্জায় বলতে চাইতাম না। যশোরের বুকে এ দুটি স্মৃতিই নয়, অনেক স্মৃতি রয়েছে। অভিনয় করার সুবাদে পৃথিবীর কত শহরে গেছি। কত জায়গায় থেকেছি। এই যে এখন ঢাকাতে আমার নিজের বাসায় আছি, নিজের মতো করে সব সাজিয়ে গুছিয়ে রাখছি। তবুও আমার মনে পড়ে প্রিয় শহর যশোরের কথা। এখন চাইলেও আমি সেখানে যেতে পারি না। আমার মন ও মগজে মিশে আছে প্রিয় শহর যশোর।

তথ্যসূত্র: যুগান্তর