চৌগাছায় শায়লা জেসমিনের বিরুদ্ধে সড়কের গাছ কাটার অভিযোগ !

প্রতিবেদক, চৌগাছা (যশোর): যশোরের চৌগাছায় জেলা পরিষদের সদস্য শায়লা জেসমিনের বিরুদ্ধে বিনা টেন্ডারে সড়কের গাছ সাবাড়ের অভিযোগ উঠেছে । বিভিন্ন সময়ে সড়কের জীবিত গাছ কেটে বিক্রি করে দিচ্ছেন। এক্ষেত্রে কোন নিয়মের তোয়াক্কা করছেন না। সর্বশেষ সোমবার চৌগাছা-মহেশপুর সড়কের দুইপাশের দুইটি শিশু গাছ কেটে নিয়েছেন। গাছ দুটির আনুমানিক মূল্য এক লাখ টাকার বেশি। স্থানীয়রা রাস্তার গাছ কেটে ‘স’ মিলে (কাঠ কাটা মিলে) নিয়ে যেতে দেখে গনমাধ্যম কর্মীদের খবর দেয়। গনমাধ্যম কর্মীরা ঘটনাস্থালে পৌঁছালে গাছ কাটার কাজে নিয়জিত শ্রমিকরা বলেন, জেলা পরিষদের সদস্যের শ্রমিক হিসেবে আমরা কাজ করছি। ওই শ্রমিক তার নয় বলে দাবি করেছেন যশোর জেলা পরিষদ সদস্য শায়লা জেসমিন। তবে তিনি বলেন, জেলা পরিষদ ইচ্ছা করলে বিনা টেন্ডারে গাছ জেলা পরিষদের আরেক সদস্য হবিবর রহমান বলেন, টেন্ডার ছাড়া কোনোভাবেই বিক্রির উদ্দেশ্যে গাছ কাটা যাবেনা। জনসেবামূলক কাজ কিংবা গাছে কারো ক্ষতি হলে কাটা যেতে পারে। তবে জেলা পরিষদ অনুমিত নিয়ে কাটতে হবে। সেই কাঠ জেলা পরিষদ ডাক বাংলোতে জমা রাখতে হবে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মারুফুল আলম বলেন, বিষয়টি জেলা পরিষদের। তারাই ভালো জানেন কিভাবে গাছ কাটা হয়েছে।