যশোরে স্কুল ছাত্রী ‘অপহরণ’ মামলায় আসামি ৩

ব্যুরো রিপোর্ট: যশোর উপশহর উচ্চবালিকা বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে অপহরণের অভিযোগে কোতয়ালি থানায় মামলা হয়েছে। ঘটনার আটদিন পর রোববার রাতে মামলা রেকর্ড হয়েছে। ওই ছাত্রীর মায়ের দায়ের করা মামলায় তিনজনকে আসামি করা হয়েছে।
আসামিরা হলো, অভয়নগর উপজেলার চেঙ্গুটিয়া বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে তারেক (২০), একই গ্রামের বাবর বিশ্বাস এবং সদর উপজেলার বসুন্দিয়া বাজারের পাশে শুকুর আলীর স্ত্রী সাবিকুর নাহার (২৭)।
এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, আসামি তারেক মোল্লা স্কুলে যাবার পথে তানিয়া ইসলাম বৃষ্টিকে বিভিন্ন ভাবে উত্যক্ত করতো ও প্রেমের প্রস্তাব দিত। কিন্তু সে তারেকের প্রেমের প্রস্তাবে রাজি হয় না। গত ১৫ জুন দুপুর আনুমানিক সাড়ে তিনটার দিকে উপশহর ইকরা কোচিং সেন্টারে কোচিং করতে যায় তানিয়া। নিউমার্কেট বক্ষব্যধী হাসপাতালের সামনে পৌছালে আসামিরা তানিয়ার গতি রোধ করে ফুসলিয়ে মাইক্রোবাসে করে নিয়ে যায়। এঘটনার পর তানিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন স্থানে খোজাখুজি করা হয়। পরে জানতে পেরে অপহরণকারী তারেকের বাড়ি যেয়ে তানিয়াকে ফেরত দেয়ার জন্যও অনুরোধ করা হয়। কিন্তু তারেকের পরিবার তানিয়াকে ফেরত দেয়ার প্রতিশ্রæতি দিয়েও তাকে ফেরৎ দেয়নি। ফলে কোতয়ালি থানায় এই ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দিলে পুলিশ তা মামলা হিসাবে রেকর্ড করে।
এই বিষয়ে কোতয়ালি থানার ওসি (তদন্ত) সমীর কুমার সরকার জানিয়েছেন, ওই স্কুল ছাত্রীকে অপরহরণ করা হয়নি। সে নিজেই তারেকের সাথে চলে গেছে বলে পুলিশ জানতে পেরেছে। তবে ওই মেয়ে অপ্রাপ্ত বয়ষ্ক। তার কোন কথা পুলিশ গ্রহণ করবে না। তার অভিভাবক অভিযোগ দিলে পুলিশ তা গ্রহণ করতে বাধ্য।