যশোর বোর্ডে পাসের হার বেড়েছে ১৫.২৫ শতাংশ

ব্যুরো রিপোর্ট: এইচএসসিতে  গত বছরের তুলনায় এবার পাসের হার বেড়েছে ১৫ দশমিক ২৫ শতাংশ। এবার যশোর বোর্ডে পাসের হার ৭৫ দশমিক ৬৫ শতাংশ। গত বছর এই হার ছিল ৬০ দশমিক ৪০। গত দু’বছর নিম্নমুখী ফলের পর এবার ঘুরে দাঁড়িয়েছে যশোর শিক্ষাবোর্ড। এবছর বেড়েছে জিপিএ-৫ প্রাপ্তিও। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ হাজার ৩১২ জন। গত বছর এই সংখ্যা ছিল ২ হাজার ৮৯ জন। তবে ২০১৬ সালে ৮৩ দশমিক ৪২ ভাগ পাসের হার নিয়ে দেশসেরা হয়েছিল যশোর বোর্ড। বুধবার দুপুরে প্রকাশিত ফলাফলে এ চিত্র উঠে এসেছে। যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড’র পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাধব চন্দ্র রুদ্র এ ফলাফল নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, এবারের ফলাফল সন্তোষজনক। সকলের প্রচেষ্টায় গতবারের চেয়ে এবার ভাল ফলাফল অর্জন সম্ভব হয়েছে।
যশোর বোর্ডের প্রকাশিত ফলাফল থেকে জানা যায়, এবছর যশোর বোর্ড থেকে ১ লাখ ২৬ হাজার ২২৯ জন শিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছে। এর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ৯৫ হাজার ৪৯৫ জন। উত্তীর্ণদের মধ্যে ছাত্র ৪৭ হাজার ৪৪২ জন এবং ছাত্রী ৪৮ হাজার ৫৩ জন। পাসের হার ৭৫ দশমিক ৬৫। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৫ হাজার ৩১২ জন। বহিষ্কৃত হয়েছে ৬০জন।
গতবছর এই বোর্ড থেকে ১ লাখ ৯ হাজার ৬৯২ জন শিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। এর মধ্যে উত্তীর্ণ হয় ৬৬ হাজার ২৫৮ জন। উত্তীর্ণদের মধ্যে ছাত্র ছিল ৩১ হাজার ৬৫২ জন এবং ছাত্রী ৩৪ হাজার ৬০৬ জন। পাসের হার ৬০ দশমিক ৪০। জিপিএ-৫ পেয়েছিল ২ হাজার ৮৯ জন। বহিষ্কৃত হয়েছিল ৪৭ জন।
২০১৭ সালে এই বোর্ড থেকে ৯৫ হাজার ৬৯২ জন শিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। এর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছিল ৬৭ হাজার ২ জন। উত্তীর্ণদের মধ্যে ছাত্র ৩৩ হাজার ৮০৮ জন এবং ছাত্রী ৩৩ হাজার ১৯৪ জন। পাসের হার ছিল ৭০ দশমিক ০২। জিপিএ-৫ পেয়েছিল ২ হাজার ৪৪৭ জন। বহিষ্কৃত হয়েছিল ৫৬ জন।
২০১৬ সালে এই বোর্ড থেকে ১ লাখ ৩০ হাজার ৫৭২ জন শিক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাশ করেছিল ১ লাখ ৮ হাজার ৯২৯ জন। পাশের হার ছিল ৮৩ দশমিক ৪২ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৪ হাজার ৫৮৬ জন। পরীক্ষায় বহিষ্কৃত হয়েছিল ৮১ হন।
২০১৬ সালে দেশসেরা ফলাফল অর্জনের পর ১৭ ও ১৮ সালে দু’বছরে পাসের হার কমে যায় ২৩ দশমিক ০২ ভাগ। এবার যশোর আবার ঘুরে দাঁড়িয়ে সন্তোষজনক ফলাফল অর্জন করেছে।
শিক্ষাবোর্ডের তথ্য অনুযায়ী, এ বছর যশোর বোর্ডে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ২১ হাজার ১৪৬ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে ১৮ হাজার ১০০ জন। পাসের হার ৮৫ দশমিক ৬০ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ হাজার ৫৪১ জন। মানবিক বিভাগ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল ৮২ হাজার ৪০৩ জন। উত্তীর্ণ হয়েছে ৫৮ হাজার ৮৩৫ জন। পাসের হার ৭১ দশমিক ৪০ ভাগ। এই বিভাগ থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ হাজার ৪৩২ জন। ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের ২২ হাজার ৬৮০ জন ছাত্র ছাত্রীর মধ্যে পাস করেছে ১৮ হাজার ৫৬০ জন। পাসের হার ৮১ দশমিক ৮৩ ভাগ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩৩৯ জন ছাত্র ছাত্রী।
এবারের ফলাফলের চিত্র তুলে ধরে যশোর শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র জানান, সকলের সহযোগিতায় গত দু’বছরের তুলনায় এবার যশোর বোর্ডে ভাল ফলাফল অর্জন সম্ভব হয়েছে। এবার দুদক ও মন্ত্রণালয়ের নোটিসের কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো নির্বাচনী পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণদের ফরমপূরণ করায়নি। ফলে নির্বাচনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণরা পরীক্ষায় অংশ নেয়ায় পাসের হার বেড়েছে। আরও একটি বড় ব্যাপার হলো, স্কুলপর্যায়ে প্রশ্নব্যাংকের মাধ্যমে প্রস্তুতি নেয়া এসএসসির প্রথম ব্যাচটি উত্তীর্ণ হয়েছিল ২০১৭ সালে। ওই শিক্ষার্থীরাই এবার এইচএসসিতে অংশ নিয়েছে। এটিও ভাল ফলাফলের আরেকটি কারণ।