মণিরামপুরের সেই শিশুর পিতৃপরিচয় মিলল ডিএনএ পরীক্ষায়

ব্যুরো রিপোর্ট: যশোরের মনিরামপুরে ধর্ষণের শিকার শিশু গৃহকর্মীর (১২) সন্তানের পিতৃপরিচয় পাওয়া গেছে। গত মাসে ঢাকায় ডিএনএ পরীক্ষাগারে ধর্ষক, ধর্ষণের শিকার ওই শিশু গৃহকর্মী এবং ধর্ষণে জন্ম নেওয়া সন্তানের ডিএনএ পরীক্ষা করা হয়। গত সোমবার তাঁদের ডিএনএ পরীক্ষার প্রতিবেদন মনিরামপুর থানায় পৌঁছায়। সেখানে ওই সন্তান ও ধর্ষকের ডিএনএর মিল রয়েছে।
ধর্ষণের শিকার শিশু গৃহকর্মী গত ৭ সেপ্টেম্বর সন্তানের জন্ম দেয়। যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তার নিরাপদ প্রসব করানো হয়। গত ১৭ সেপ্টেম্বর ঢাকায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ডিএনএ পরীক্ষাগারে ধর্ষক, ধর্ষণের শিকার ওই শিশু গৃহকর্মী এবং ধর্ষণে জন্ম নেওয়া সন্তানের ডিএনএ পরীক্ষা করা হয়। সোমবার তাঁদের ডিএনএ পরীক্ষার প্রতিবেদন মনিরামপুর থানায় পৌঁছায়। প্রতিবেদনে ওই সন্তান এবং মনিরামপুর উপজেলা পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশনের সহকারী দারিদ্র্য বিমোচন কর্মকর্তা গোলাম কিবরিয়ার (৫৬) ডিএনএর মিল রয়েছে।এর আগে ধর্ষণের অভিযোগে গত ১ জুলাই ওই শিশু গৃহকর্মীর বাবা বাদী হয়ে গোলাম কিবরিয়ার বিরুদ্ধে মনিরামপুর থানায় একটি মামলা করেন। পুলিশ ওই রাতেই উপজেলার তাহেরপুর এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে গোলাম কিবরিয়াকে গ্রেপ্তার করে। শিশুটি তাঁর বাসায় কাজ করত। গোলাম কিবরিয়ার বাড়ি ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার আসাননগর গ্রামে। তিনি ২০১২ সাল থেকে পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশনের মনিরামপুর শাখায় সহকারী দারিদ্র্য বিমোচন কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত। স্ত্রীকে নিয়ে তিনি উপজেলার তাহেরপুর গ্রামের একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন। ওই বাসায় শিশুটি কাজ করত।