যশোরে তুলে নিয়ে কিশোরি গণধর্ষণ: মামলা হয়নি

ব্যুরো রিপোর্ট: যশোরে (১৫) বয়সী এক কিশোরী অপহরণের পর ধর্ষণের শিকার হয়েছে। শুক্রবার রাতে শহরের হুশতলা এলাকা থেকে অপহরণের পর ধর্ষর্ণের শিকার হয়। শনিবার বিকেলে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তির পর বিষয়টি জানাজানি হয়। এই ঘটনায় মামলা হয়নি।
ভিকটিম জানায়, শুক্রবার রাত ৯টার দিকে শহরের বকচর এলাকায় তার এক বান্ধবীর বাড়ি থেকে রিকশাযোগে একাই মনিহার বাসস্ট্যান্ডে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে র‌্যাব অফিসের সামনে পৌঁছলে একটি মাইক্রোবাস এসে রিকশার গতিরোধ করে অস্ত্র ঠেকিয়ে চোখ বেঁধে তাকে তুলে নিয়ে যায়। এরপর তাকে শহরের অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে ছয় যুবক ধর্ষণ করে। এদের মধ্যে ভাগ্নে মামুন ও ভাগ্নে হৃদয়কে চিনতে পেরেছে। সেখান থেকে শনিবার সকালে বোনের বাড়িতে গেলে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তাকে বেলা তিনটার দিকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
হাসপাতালের চিকিৎসক হালিমাতুজ জোহরা জানান, ভিকটিমের ক্ষতস্থানে সেলাই দেওয়া হয়েছে। আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। রিপোর্ট আসার পর বিস্তারিত জানা যাবে।
কোতয়ালি থানার ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, ভিকটিমের চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। ভিকটিম ও তার মায়ের সঙ্গে কথা বলেছি। মামলা প্রক্রিয়াধীন। অপরাধীদের সনাক্তের চেষ্টা করছি। #