পূর্ব নির্ধারিত সময়সূচিতে যবিপ্রবি’র ভর্তি পরীক্ষা

ব্যুরো রিপোর্ট : নতুন সড়ক আইন সংশোধনসহ দশ দফা দাবিতে খুলনা বিভাগে চলছে পরিবহন ধর্মঘট। অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘটে বিপাকে পড়েছে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার্থীরা। আগামি ২১ ও ২২ নভেম্বর ছয়টি ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরিবহন ধর্মঘট চলমান থাকলেও পরীক্ষা পূর্বনির্ধারিত সময়সূচিতে নিবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এতে পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ভোগান্তির আশংকা রয়েছে।
যবিপ্রবির রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী আহসান হাবীবের সই করা এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার দুপুরে উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত স্টিয়ারিং কমিটির সভা হয়। সভায় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী যবিপ্রবি ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ২১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে ১১টা পর্যন্ত ‘এ’ ইউনিট, দুপুর সাড়ে ১২ থেকে ২টা পর্যন্ত ‘বি’ ইউনিট এবং বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত ‘সি’ ইউনিটের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ২২ নভেম্বর শুক্রবারের সকল পরীক্ষা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হবে। শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত ‘ডি’ ইউনিট, বেলা ১১টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ‘ই’ ইউনিট এবং বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে ৫টা পর্যন্ত ‘এফ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।
এ প্রসঙ্গে যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন বলেন, ভর্তি পরীক্ষা একটি বিরাট কর্মযজ্ঞ। একইসঙ্গে একটি স্পর্শকাতর বিষয়। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার ছেলে-মেয়ে ভর্তি পরীক্ষার জন্য যশোরে আসবেন। কিন্তু খুলনা ও রাজশাহী বিভাগে পরিবহন চলছে না। বর্তমানে যবিপ্রবির ভর্তি পরীক্ষার প্রস্তুতি এখন এমন পর্যায়ে যে, ভর্তি পরীক্ষা পেছানোর আর কোনো সুযোগ নেই। পরিবহন মালিক-শ্রমিক এবং এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সকলের নিকট আমার আহ্বান থাকবে, ছেলে-মেয়েদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে ভর্তি পরীক্ষার সময় আপনারা পরিবহন চলাচল বন্ধ রাখবেন না। যবিপ্রবি ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সহযোগিতা করুন। একইসঙ্গে যবিপ্রবির ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে তিনি খুলনা বিভাগীয় প্রশাসন, যশোরের স্থানীয় প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।
তিনি আরও বলেন, ভর্তি পরীক্ষার সময় ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী এবং তাদের অভিভাবকদের জন্য যশোর শহর থেকে পরীক্ষার কেন্দ্রগুলোতে যাতায়াতের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্যোগে পর্যাপ্ত পরিবহন ব্যবস্থা থাকবে।
যশোর জেলা পরিবহন সংস্থা শ্রমিক সমিতি’র সভাপতি মামুনূর রশীদ বাচ্চু বলেন, সোমবার রাতে সার্কিট হাউজে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে। জেলা প্রশাসন থেকে ধর্মঘট প্রত্যাহারের আহ্বান জানানো হয়েছে। বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার জন্য মানবিক বিবেচনায়গাড়ি চালুর কথা বলা হয়েছে। আমরা শ্রমিকদের বলেছি। কিন্তু তারা গাড়ি চালাতে চায় না। কেউ গাড়ি চালাতে না চাইলে বাধ্য করতে পারি না। তিনি আরও বলেন, পরীক্ষা উপলক্ষে গাড়ি রিজার্ভ করলে কেউ বাধা দিবে না। এছাড়াও স্বেচ্ছায় কেউ গাড়ি চালালে রাস্তায় কেউ বাধা দিবে না। যদি কেউ বাধা দেয় কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।