যশোরে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালন

ব্যুরো রিপোর্ট : যশোরে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে যশোর মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের আয়োজনে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এবার দিবসটির প্রতিপাদ্য ছিল ‘আমাদের ভবিষ্যৎ, মৃত্তিকার ক্ষয়রোধ’। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মৃত্তিকা ভবন থেকে র‌্যালিটি বের হয়। এরপর শহরের পালবাড়ির রওশন আলী সড়ক হয়ে ভাস্কর্যের মোড় ঘুরে অবস্থিত মৃত্তিকা ভবনে এসে শেষ হয়। র‌্যালি শেষে মৃত্তিকা ভবন অডিটরিয়ামে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউট যশোরের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা জিএম মোস্তাফিজুর রহমান। তিনি বলেন, প্রায় ৩৭ লক্ষ হেক্টর জমিতে জৈব পদার্থের পরিমাণ শতকরা ১.৭ ভাগের নিচে। প্রায় ২.৫ লক্ষ হেক্টর জমি অত্যাধিক অম্লতায় আক্রান্ত আর ১০ লক্ষ ৫৬ হাজার হেক্টর জমি লবণাক্ততার বিভিন্ন মাত্রায় আক্রান্ত। মাটি একটি অন্যতম প্রাকৃতিক মাধ্যম, যা উদ্ভিদকে ধারণ করে এবং গাছের চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান ও পানির যোগান দিয়ে থাকে। সুষ্ঠু ব্যবহারে মাটির স্বাস্থ্য ভালো থাকে এবং ফসলের ফলন বেশি হয়।
জনসংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে প্রতি বছর জমির পরিমাণ অনাবাদি জমিতে পরিণত হচ্ছে প্রায় এক শতাংশ হারে। বিশ্বে প্রতি ৫ সেকেন্ডে একটি ফুটবল মাঠের সমপরিমাণ (জমির টপ সয়েলের ৮ ইঞ্চি পরিমাণ) এলাকার মাটি ক্ষয় হচ্ছে। টপ সয়েল ক্ষয় হয়ে যাওয়ায় মাটির জৈব পদার্থ, পিএইচ, নাইট্রোজেন, ফসফরাস, পটাশিয়াম, সালফার, দস্তা, বোরণসহ বিভিন্ন পুষ্টি উপাদানের ক্ষেত্রে পূর্ববর্তী ও বর্তমান সময়ে উল্লেখযোগ্য ব্যবধান পরিলক্ষিত হয়।
আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. গোবিন্দ চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর যশোর অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক মোহাম্মদ আলী, বিশেষ অতিথি ছিলেন যশোর বিএডিসির যুগ্ম-পরিচালক (সার) কৃষিবিদ প্রকাশ কান্তি মন্ডল, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর যশোরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ এমদাদ হোসেন শেখ, যশোর জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. ভবতোষ কান্তি সরকার। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এসএম আশিক ইকবাল।