বঙ্গবন্ধু জাতীয় ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীপে তারুণ্য নির্ভর দল যশোরের

ক্রীড়া প্রতিবেদক : বঙ্গবন্ধু জাতীয় ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীপ উপলক্ষ্যে তরুণদের প্রাধান্য দিয়ে যশোর জেলা দল ঘোষণা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ঘোষিত দলে সুযোগ পাওয়া অধিকাংশ খেলোয়াড়ই আগে জেলা দলে খেলেনি। তবে তারা দীর্ঘদিন জেলার শীর্ষ পর্যায়ের পরীক্ষিত খেলোয়াড়। দীর্ঘদিন জেলা দলের কোন খেলা না থাকায় এমন হয়েছে বলে জানিয়েছেন ম্যানেজার আশরাফুল ইসলাম। এছাড়া স্ট্রাইকার পজিশনে তিনজনকে রেখে মিডফিল্ডারদের প্রাধান্য দেয়া হয়েছে।
দলে আছেন সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবল পেনাল্টি ঠেকিয়ে নায়ক বনে যাওয়া গোলকিপার মেহেদি হাসান। দলের আরও দুই গোলকিপার হিসেবে যায়গা পেয়েছেন সুমন ও সাইদুর রহমান সাঈদ। মেহেদি দলে থাকলেও মূল একাদশে সুযোগ পাবেন না। সুমনই প্রথম একাদশে থাকবেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।
গোলকিপার ও স্ট্রাইকার পজিশনের রাখা ছয় খেলোয়াড়ই জেলা দলে অভিষেকের অপেক্ষায় রয়েছে। তবে ডিফেন্ডার হিসেবে দলে সুযোগ পেয়েছেন আক্তার বাবু, বিশ্বজিত সাহার মতো অভিজ্ঞ খেলোয়াড়রা।
বঙ্গবন্ধু জাতীয় ফুটবল চ্যাম্পিয়নশীপ অনুষ্ঠিত হবে হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে। সেই হিসেবে যশোরের প্রথম ম্যাচ হবে শামস্-উল-হুদা স্টেডিয়ামে। ২১ জানুয়ারি যশোর খেলবে গোপালগঞ্জের মাঠে। মুজিববর্ষ উপলক্ষে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করছে।
যশোরের ২৩ সদস্য চূড়ান্ত দল
গোলকিপার : সুমন, সাইদুর রহমান সাঈদ ও মেহেদি হাসান।
ডিফেন্ডার : বিশ্বজিত সাহা, আক্তার বাবু, শাহিনুর রহমান শাহিন, রানা বিশ্বাস, খালেকুজ্জামান সবুজ, সরোয়ার তালুকদার, আশিক মাহামুদ লিমন ও জাহিদ হোসেন।
মিডফিল্ডার : খোকা বাবু, লিটন রায়, পলাশ হোসেন, জাহিদ হাসান, বাবু হোসেন (ছোট বাবু), আরাফাত, মোঃ আওরোঙ্গজেব, রাব্বি হাসান রাহুল ও সাগর দত্ত।
স্ট্রাইকার : কৌনিক আহমেদ শিপন, আশরাফুল ইসলাম ও কংকর।
টিম লিডার হিসেবে থাকবেন ডিএফএ’র প্রধান কোচ আলমগীর সিদ্দিকী ও কাজী জামাল হোসেন। দলের ম্যানেজার করা হয়েছে আশরাফুল ইসলামকে। এছাড়া কোচ করা হয়েছে সাব্বির আহমেদ পলাশ ও রফিকুল ইসলামকে।