উদ্ধার দেখতে নদী পাড়ে মানুষের ঢল

বার্তাকক্ষ: যশোরের বেনাপোলে নদীতে সাঁতার কাটতে গিয়ে নিখোঁজ ইকরামুল (১৫) নামে এক কিশোরের লাশ উদ্ধার হয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলের প্রচেষ্টায় ৭ ঘন্টা পর শনিবার সন্ধ্যায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। ঘটনাটি ঘটেছে বেনাপোল পোর্ট থানার ধান্যখোলা –ঘিবা জোড়া ব্রিজ সংলগ্ন কোদলা নদীতে। শনিবার বেলা ১ টার দিকে তিন বন্ধু সাঁতার কাটতে নেমে ইকরামুল নিখোঁজ হয়। নিহত ইকরামুল ধ্যান্যখোলা দক্ষিনপাড়া গ্রামের ইমামুলের ছেলে। উদ্ধার অভিযান চলাকালে নদীর পাড়ে শত শত উৎসুক জনতার ঢল নামে। করোনা পরিস্থিতর মধ্যেও মানুষের এমন ভিড় উদ্বেগকজনক।

স্থানীয়রা জানায়, ইকরামুল, রনি ও হাবিবুল্লাহ কোদলা নদীর ব্রীজ থেকে লাফিয়ে সাঁতার কেটে দক্ষিন দিকে যায়। সেখান থেকে ফেরার সময় রনি ও হাবিবুল্লাহ ব্রীজের উপর উঠলেও ইকরামুল উঠতে পারে নাই।
রনি জানায়, একসাথে সাঁতার কেটে আসছিলাম। ব্রীজের কাছে এসে ইকরামুল হারিয়ে যায় । তাকে আমরা দেখতে না পেয়ে গ্রামের লেকজনদের খবর দেই। এরপর গ্রামের লোকজন এসে চেষ্টা করে তাকে উদ্ধার করতে পারে নাই। কিশোরকে উদ্ধার করতে না পেরে বেনাপোল ফায়ার সার্ভিস ইউনিটকে খবর দেই।
বেনাপোল ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট প্রধান তৌহিদুর রহমান সুমন বলেন, খুলনা থেকে ডুবুরি দল এসে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে ইকরামুলের লাশটি উদ্ধার করেছে।
এদিকে, কোদলা নদীর দু’পাড়ে কয়েক হাজার নারী পুরুষ উদ্ধার কাজ দেখার জন্য ভিড় জমায়। করোনা পরিস্থিতর মধ্যেও মানুষকে ঠেকানো যায়নি। সামাজিক দূরুত্ব মানা হয়নি। বেশিরভাগ মানুষের মুখে মাস্ক ছিল না। এমন দৃশ্য দেখে হতবাক হয়েছেন অনেকই।