যশোরের প্রাথমিক শিক্ষকদের ১০ দফা দাবি

ব্যুরো রিপোর্টার: প্রধানমন্ত্রী বরাবর দশ দফা দাবিতে স্মারকলিপি দিয়েছে জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক শিক্ষক মহাজোট। রোববার সকালে সংগঠনের যশোর জেলা শাখার উদ্যোগে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্মারকলিপি পেশ করা হয়। স্মারকলিপি গ্রহণ করেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান।
শিক্ষকদের দশ দফা দাবির মধ্যে রয়েছে- ৫০ শতাংশ বেসরকারি চাকরিকাল গণনা করে পদোন্নতির তালিকা তৈরি, প্রধান শিক্ষক ও সহকারী শিক্ষকদের প্রাপ্ত টাইমস্কেলের ভিত্তিতে উন্নীত স্কেল বাস্তবায়ন, প্রধান শিক্ষকদের গেজেট থেকে বাদপড়া শিক্ষকদের গেজেট সংশোধনক্রমে প্রধান শিক্ষকদের গেজেট প্রকাশ করা, জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক বিদ্যালয় সমূহের ৯৯ কোড পরিবর্তন করে ১নং কোড নিয়ে আসাসহ রেজিস্টার শব্দটি বাদ দেওয়া, পূর্বের নিয়োগকৃত শিক্ষকদের যোগ্যতা ভিত্তিক স্কেল প্রদান, বর্তমান শুধুমাত্র সহকারী শিক্ষক পিএসসির মাধ্যমে নিয়োগ নিয়োগ দিয়ে প্রাথমিক ক্যাডার সার্ভিস চালু করা, বর্তমান নিয়োগ বিধিতে সহকারী শিক্ষকদের নূন্যতম যোগ্যতা বিএ পাশ নির্ধারণ করা হয়েছে বিধায় সহকারী শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড ও মহাপরিচালক পর্যন্ত শতভাগ পদোন্নতির ব্যবস্থা করা, পিআরএল যাওয়া জাতীয়করনকৃত শিক্ষকদের আর্থিক সমস্যা সমাধান করা, জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাক-প্রাকথিম শিক্ষকদেও পদ সৃষ্টি ও বাস্তবায়ন করা ও জাতীয়করণকৃত প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী কাম-নৈশ প্রহরী নিয়োগের ব্যবস্থা করা।
স্মারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন, প্রাথমিক শিক্ষক মহাজোটের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি নজরুল ইসলাম, জেলা কমিটির আহবায়ক কাজী ফিরোজুজ্জামান আলমগীর, যুগ্ম আহŸায়ক হযরত আলী, শাহানুর রহমান, শাহজাহান কবির, সদস্য সিরাজুল ইসলাম, কিয়াক উদ্দীন ও মিজানুর রহমান প্রমুখ।