চিকিৎসক ও পুলিশ কর্মকর্তার নামে চার্জশিট

ব্যুরো রিপোর্টার: যশোরে দুর্নীতি মামলায় এক চিকিৎসক ও পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে চার্জশীট গৃহীত হয়েছে। সম্প্রতি সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন দুর্নীতি দমন কমিশন যশোরের সহকারী পরিচালক মাহফুজ ইকবাল। শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দুদক যশোরের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) সিরাজুল ইসলাম।
আসামিরা হলেন- যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসাপতালের তৎকালিন ইমাজেন্সি মেডিকেল অফিসার বর্তমানের সোহরয়িার্দ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু সার্জারি বিভাগের সহকারি রেজিস্টার ডাক্তার আব্দুল্লাহ আল মামুন ও কেশবপুর থানার তৎকালিন এসআই ও বর্তমানে বাগেরহাট সদর থানায় কর্মরত হিরন্ময় সরকার।
আদালত সূত্র জানায়, ২০১৫ সালে কেশবপুরের শ্রীফলা গ্রামে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় ছেরমত আলী গুরুতর আহত হন। এ ব্যাপারে তার ভাই কেশবপুর থানায় একটি মামলাল করেন। যার নম্বর ১২ তারিখ ২৩/৩/২০১৫। এ মামলার তদন্তকালে এসআই হিরন্ময় সরকার ও যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের ইমাজেন্সি চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল মামুন যোগসাজসে মিথ্যা জখমি সনদ তৈরী করে এবং এ জখমি সনদের উপর আদালতে দুর্বল চার্জশিট জমা দেন। বিষয়টি আহত ছেরমত আলীর নজরে আসলে ২০১৮ সালের ২১ মে জেলা ও দায়রা জজ আদলতে ওই দুইজনকে আসামি করে দুর্নীতির অভিযোগে এনে মামলা করেন। আদালতে আদেশে দুর্নীতি দমন কমিশনের তদন্তের দায়িত্ব পায়। চলতি বছরের ১৯ জুলাই সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে চার্জশিট জমা দেন দুদক যশোরের সহকারি পরিচালক মাহফুজ ইকবাল।