উপনির্বাচন ঘিরে উত্তপ্ত বাঘারপাড়া

ব্যুরো রিপোর্টার: যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই ভোটের মাঠ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে।  আওয়ামী লীগের তৃণমূলের বড় অংশ বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থীর পক্ষে মাঠে নামায় ভোটের সমীকরণ ঘোলেটে হচ্ছে। সর্বশেষ মঙ্গলবার (৮ ডিসেম্বর) রাতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর আনারস প্রতীকের পোস্টার পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধারাবাহিকভাবে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের হামলা, মারপিট, ভাংচুর, অগ্নিসংযোগের ঘটনায় সাধারণ মানুষের মধ্যে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে সংশয় রয়েছে।
বাঘারপাড়া থানার ওসি সৈয়দ আল মামুন জানান, সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য কাজ করছে প্রশাসন। নির্বাচনে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’  পোস্টার পোড়ানো প্রসঙ্গে ওসি জানান, তিনি ঘটনাস্থলে আছেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।’
জানা যায়, ১০ ডিসেম্বর (বৃহস্পতিবার) সকাল ৯টা থেকে বিরতিহীনভাবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ৬৩টি কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ হবে। এরমধ্যে ৩৯টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করেছে প্রশাসন। উপজেলার একটি পৌরসভা ও নয়টি ইউনিয়নে মোট ভোটারের সংখ্যা ১ লাখ ৭৩ হাজার ৭শ’ ৭৯ জন। মোট ৬৩ টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৩৯ টি ভোট কেন্দ্র পুলিশ ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে বিবেচনায় নিয়েছে। এরমধ্যে ১০টি অধিক ঝুঁকিপূর্ণের বিবেচনায় নিয়েছে পুলিশ প্রশাসন। চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্ব›দ্বীতা করছেন নৌকা মার্কায় ভিক্টোরিয়া পারভীন সাথী, ধানের শীষ মার্কায় শামসুর রহমান ও আনারস মার্কায় পিএম রেজাউল ইসলাম দ্বীন মোহাম্মদ ওরফে দিলু পাটোয়ারি।
স্বতন্ত্র প্রার্থী পিএম রেজাউল ইসলাম দ্বীন মোহাম্মদ ওরফে দিলু পাটোয়ারী জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় যশোর থেকে ছেড়ে আসা একটি সিএনজি গাড়িতে আনারস প্রতীকের পোস্টার নিয়ে বাঘারপাড়ায় নেওয়া হচ্ছিল। পথিমধ্যে গাড়িটি হাবুল্লা বাজারে পৌঁছালে কয়েকজন লোক গাড়ি থামিয়ে পোস্টারে নামিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে কয়েক হাজার পোস্টার পুড়ে ছাই হয়ে যায়। তবে চালকের বুদ্ধিমত্তায় গাড়িটি রক্ষা পেয়েছে। নৌকার কর্মী সমর্থকরা আনারসের পোস্টার পুড়িয়ে দিয়েছে।
অপরদিকে, আনারস মার্কার স্বতন্ত্র প্রার্থী পিএম রেজাউল ইসলাম দ্বীন মোহাম্মদ ওরফে দিলু পাটোয়ারির ২৬কর্মী সমর্থককে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে বাঘারপাড়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আওয়ামীলীগ,যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতাসহ অন্তত ২৬ নেতা-কর্মীকে আটক করা হয়।
আটককৃতরা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থীর আনারস মার্কার কর্মী সমর্থক হিসেবে মাঠে রয়েছে। আটককৃতদের মধ্যে কয়েকজন হলেন, দরাজহাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন, একই ইউনিয়নের ইউপি সদস্য রিপন হোসেন, উপজেলা যুবলীগ নেতা ও নারিকেলবাড়িয়া ইউপি সদস্য তরিকুল ইসলাম, একই ইউনিয়নের মুজিবুর মোল্যার ছেলে আব্দুল হাই, বাসুয়াড়ী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ফসিয়ার রহমান, একই ওয়ার্ডের সাবেক সভাপতি লুৎফর মেম্বর, যুবলীগ নেতা ইকবাল হোসেন, রায়পুর ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদ হোসেন, উপজেলা স্বেচ্ছসেবকলীগের যুগ্ম আহবায়ক রাসেল আহমেদ।
মঙ্গলবার বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে দিলু পাটোয়ারি অভিযোগ করে বলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের প্রায় সব নেতাকর্মী আনারস মার্কাকে বিজয়ী করতে একাট্টা হয়েছেন। যে কারণে নৌকার প্রার্থীর পরাজয় নিশ্চিত জেনে তারা আমার কর্মীদের নামে একের পর এক মিথ্যা  মামলা দিয়ে এবং হামলা চালিয়ে ভীতি সৃষ্টি করার অপচেষ্টা চালিয়ে আসছে। কতিপয় পুলিশ কর্মকর্তাদের অতিউৎসাহী কর্মকান্ডে  সরকারি দলের  নেতা কর্মীরাসহ সাধারণ মানুষ আজ অতিষ্ট হয়ে উঠেছে।  এর ফলে  সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে বলে আমি মনে করি। আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীরা বাড়িতে ঘুমাতে পারছেনা। নৌকার কর্মীরা আওয়ামীলীগ নেতা কর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে আনারস প্রতীকে ভোট না দেওয়ার জন্য শাসিয়ে আসছে। এমনকি ভোট  কেন্দ্রে গেলে ভয়ানক পরিস্থিতি সৃষ্টি করার হুংকার দিচ্ছেন। নির্বাচনের দিন ভোট ডাকাতি হওয়ার আশংকায় রয়েছি। একই সাথে আমিসহ আমার কর্মীরা প্রাণহানির আশংকা করছি।
নৌকা প্রার্থী ভিক্টোরিয়া পারভীন সাথী সাংবাদিকদের বলেন, তার প্রায়ত স্বামী নাজমুল ইসলাম কাজল বাঘারপাড়ার মাটি ও মানুষের সাথে মিশে আছে। তিনি শুধু নিজ দলের মধ্যেই জনপ্রিয় ছিলেন না। ভিন্ন রাজনৈতিক মতাদর্শের মানুষের কাছেও তিনি সমান জনপ্রিয় ছিলেন। এ কারণে তিনি জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী।
নৌকার প্রার্থী সাথী অভিযোগ করে আসছেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী দিলু পাটোয়ারি তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে ভোটের মাঠে বিশৃংখলা সৃষ্টি করছে।’
বাঘারপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আল মামুন বলেন, ১০ ডিসেম্বরের উপনির্বাচনে অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে পারে এমন আশংকায় এজাহারভুক্ত ও সন্দিগ্ধ ২৬জন আসামিকে আটক করা হয়েছে। পুলিশ সুষ্ঠু নির্বাচনের লক্ষ্যে নিরপেক্ষভাবে কাজ করছে। স্বতন্ত্র প্রার্থীর অভিযোগ সঠিক নয়।’
প্রসঙ্গত, গত ৭ সেপ্টেম্বর বাঘারপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান নাজমুল ইসলাম কাজল হবিগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গেলে এই পদটি শূন্য হয়। এই নির্বাচনে আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীক পেয়েছেন নিহত উপজেলা চেয়ারম্যান কাজলের স্ত্রী ভিক্টোরিয়া পারভিন সাথী। ইউপি চেয়ারম্যান দিলু পাটোয়ারী তাকে চ্যালেঞ্জ করে স্বতন্ত্র  প্রার্থী হিসেবে আনারস প্রতীকের প্রার্থী হয়েছেন। নির্বাচনী লড়াইয়ে রয়েছেন বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক শামছুর রহমান। আগামি ১০ ডিসেম্বর উপনির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।