বাঘারপাড়ায় পাল্টাপাল্টি মামলা : আসামি নৌকা ও আনারসের ৫৬সমর্থক, গ্রেফতার ৯

ব্যুরো রিপোর্টার: যশোর বাঘারপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে নৌকা ও আনারস প্রতীকের কর্মী সমর্থকদের মারপিটের অভিযোগে পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে। এতে উভয়পক্ষের ৫৬জনকে আসামি করা হয়েছে। সোমবার গ্রেফতারকৃত ৯আসামিকে আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ। রোববার রাতে থানায় মামলা দুটি দায়ের করেছেন স্বতন্ত্র (আনারস) প্রার্থীর সমর্থক আলাদীপুর গ্রামের জাহিদ সরদার ও আওয়ামী লীগের (নৌকা) সমর্থক বারভাগ গ্রামের ওলিয়ার রহমান।
এ প্রসঙ্গে সোমবার রাতে বাঘারপাড়া থানার ওসি সৈয়দ আল মামুন বলেন, মারপিটের অভিযোগে নৌকা ও আনারস মার্কার সমর্থকদের বিরুদ্ধে পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। ৫৬ আসামির মধ্যে ৯জনকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এদের মধ্যে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ৬জন ও নৌকার ৩জন সমর্থক রয়েছে। আইনশৃংলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।’
জানা যায়, আগামি ১০ ডিসেম্বর বাঘারপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা মার্কার প্রার্থী ভিক্টোরিয়া পারভীন সার্থী ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র প্রার্থী পিএম রেজাউল ইসলাম ওরফে দিলু পাটোয়ারির সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা চলছে। সর্বশেষ রোববার রাতে বাঘারপাড়ার আলাদিপুর গ্রামে দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে।
আনারস প্রতীকের সমর্থক ও মামলার বাদী জাহিদ সরদারের অভিযোগ, ২৯ নভেম্বর রাতে আলাদিপুর বাজারে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ছিলেন। এসময় ওলিয়ার রহমানের নেতৃত্বে একদল লোক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ঢুকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। একপর্যায়ে ওলিয়ার রহমানের হুকুমের কুপিয়ে জখম করে। এসময় তাকে উদ্ধার করতে গেলে ছেলে বাপ্পা, চাচাত ভাই তালেব সরদারকে মারপিট করে জখম করে। স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে আসামিরা পালিয়ে যায়। ওই রাতে জাহিদ সরদার ১৯ জনের নাম উল্লেখসহ অপরিচিত ৩০/৪০ জনকে আসামি করে বাঘারপাড়া থানায় মামলা করেন। আসামিরা হলেন- বারভাগ গ্রামের হিরক, জাহিদ, ওলিয়ার রহমান, সোহান, নয়ন, ইমরান, সাহাবুদ্দিন, রাজু, সুমন, মাহাবুব গাজী, মামুন, জাকের, রায়হান, সাগর, জয়রামপুর গ্রামের ইকরামুল, নিত্যনন্দপুর গ্রামের বিপুল, টুটুল, ফজলুর রহমান, আলাদীপুর গ্রামের আকতার।
অপরদিকে, নৌকার সমর্থক ও মামলার বাদী ওলিয়ার রহমান লোকজন নিয়ে সন্ধ্যায় আলাদীপুর বাজারে নৌকার পক্ষে প্রচারণা করছিলেন। এমন সময় জাহিদ মেম্বরের নেতৃত্বে একদল লোক তার জামাতা রাজু আহম্মেদের উপর হামলা করে। রাজুকে উদ্ধার করতে গেলে হামলাকারীরা অনেককে মারপিট করে আহত করে। এব্যাপারে ওলিয়ার রহমান বাঘারপাড়া থানায় ৩৭ জনের নাম উল্লেখসহ অপরিচিত ২০/৩০ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন। আসামিরা হলেন-আলাদীপুর গ্রামে জাহিদ সরদার, বাপ্পা, শহিদ সরদার, ইকবাল, বারভাগ গ্রামের সাহেব আলী, সুজন, আতিক সরদার, নিত্যনন্দপুর গ্রামের হালিম, শফিকুল, জয়রামপুর গ্রামের অপু, শাহীন মোল্লা, রাধানগর গ্রামের বিল্লাল, শাজাহান ধাবক, বাররা গ্রামের রফিক, আজাহার, মীরপুর গ্রামের মুন্সি বাহার উদ্দিন, দোহাকুলা গ্রামের শামসুর রহমান, হালদা গ্রামের শরিফুল, মুন্না, বেতালপাড়ার রবিউল, রবিউল কানা, হারুন নাপিত, রাজিব, উত্তর চাঁদপুর গ্রামের শিপন লস্কর, মাঝিয়ালি গ্রামের সেলিম বিশ্বাস, হিংগারপাড়া গ্রামের কৌশিক শিকদার, ডাক্তার মিজানুর, জোহরপুর গ্রামের নান্টু সরকার, খন্দকার কামাল, উত্তম বিশ্বাস, সেলিম খন্দকার, হলিহট্ট গ্রামের মাসুদুর রহমান, জসিম, রশিদ ও জয়পুর গ্রামের আলী আজগর হৃদয়।